আচ্ছা এর জন্য আমি একাই দায়ী?: ক্রিকেটার এনামুল হক বিজয়

এনামুল হক বিজয় বাংলাদেশ ক্রিকেটে এক পরিচিত মুখ। যাকে ঘিরে তৈরি হয়েছিল উম্মাদনা জাতীয় দলের জার্সি গায়ে চাপানোর আগেই। বিশেষ করে ২০১২ সালে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ বিপিএলে তৎকালীন ঢাকা গ্লাডিয়েটর্সের হয়ে উইকেটের পেছন সামলানোর পাশাপাশি ব্যাটিংয়ে ঝলক দেখিয়ে নজর কারেন ক্রিকেট ভক্তদের।

২০১২ সালের অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে দেখিয়েছেন নিজের সামর্থ্য। বাবর আজম, ডি ককদের মতো এখনকার তারকারা সে সময় যুব বিশ্বকাপে মাঠ মাতালেও নিজয় তাদেরকে ছাড়িয়ে নিজের নামটা তুলে রেখেছিলেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের প্রথম স্থানে। তিনি ছয় ম্যাচে ৬০.৮৩ গড়ে করেছিলেন ৩৬৫ রান। তার স্ট্রাইকরেটও ছিল ৮৫.০৮ যা চোখে পড়ার মতোই।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও এনামুল হক বিজয়ের শুরুটা খারাপ ছিল না। ২০১২ সালে বাংলাদেশে সফরে আসা ওয়েস্ট ইন্ডিজ দলের বিপক্ষে ওয়ানডে দলে জায়গা পান বিজয়। প্রথম ম্যাচে খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে অভিষেক ঘটে তাঁর। সেদিন খেলেছিল ৬২ বলে ৭ চারে ৪১ রানের ইনিংস। বাংলাদেশ ম্যাচটি জিতে নেয় ৭;উইকেটে। এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে খেলেন ১৪৫ বলে ১২০ রানের ইনিংস। এরপর থেকে তামিমের সঙ্গী হিসেবে বেশ ভালোই করেছিলেন তিনি। কিন্তু সময়ের পরিক্রমায় বিজয় এখন নিজেকে হারিয়ে খুঁজেন নিজেকে। অন্যদিকে বাবর আজম, ডি ককরা বিশ্বের আনাচে কানাচে মাঠ মাতিয়ে বেড়ান৷

২০১২ সালের ৩০ নভেম্বর থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ এই সময়ে ২৯ ওয়ানডেতে তাঁর ছিল তিন সেঞ্চুরি ও তিন ফিফটি। যেখানে দুটিতে আবার ছিল ৮০ ও ৯০ রানের ইনিংস!

কিন্তু ২০১৫ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটে আফগানিস্তান,শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে গ্রুপ পর্বের ম্যাচ খেলেন। এরপর স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচে ফিল্ডিং করতে গিয়ে ইনজুরিতে পড়ে বিপদের সম্মুখীন হন তিনি। এরপর থেকেই জাতীয় দলে অনিয়মিত এনামুল হক বিজয়।

ঘরোয়া ক্রিকেটে নিয়মিত পারফর্মও করেন বিজয়। ঢাকা লিগ এবং প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে তার রয়েছে ২২টি সেঞ্চুরি। কিন্তু আফসোস তবুও তাঁর সুযোগ মেলে না। সৌম্য, মিথুন, লিটনদের মতো সুযোগ পান নি তিনি। এমনকি তার থেকে বেশি সুযোগ পেয়েছেন সাব্বির রহমানও।

সম্প্রতি জাগো নিউজের সাথে খোলামেলা আলাপে বিজয়ের কণ্ঠে ঝড়েছে আক্ষেপ। মনের অব্যক্ত কথা জানিয়েছেন তিনি। বলছেন তাঁকে কি পর্যাপ্ত সুযোগ দেয়া হয়েছিলো?

এনামুল হক বিজয় বলেন, “আসলে কী বলবো? আমার ক্যারিয়ারে প্রথম ২৩ ওয়ানডেতেই তিনটি সেঞ্চুরি হয়ে গিয়েছিল। হ্যাঁ, সত্যি আমার যেখানে থাকার কথা ছিল, আমি এখন সেখানে নেই। ক্যারিয়ার যতটা বর্ণিল হতে পারতো, তা হয়নি। তা নিয়ে আক্ষেপ, কষ্ট, দুঃখ-বেদনা আর হতাশা আছে অবশ্যই।”

এরপর বিজয় নিজেই ছুড়েন প্রশ্ন। তিনি বলেন, “আবার সঙ্গে একটি বড় প্রশ্নও আছে। আমার জিজ্ঞাসা, আচ্ছা এর জন্য আমি একাই দায়ী? আমার ক্যারিয়ারের আজকের এ অনিশ্চিত অবস্থার জন্য কী একা আমি দায়ী? আমি জানি না। আমি ন্যাশনাল টিমে যখন নিয়মিত ছিলাম, তখন টপ পারফরমার ছিলাম। কিন্তু যেই না দলে অনিয়মিত হতে শুরু করলাম, তারপর আর সেভাবে চান্সই পেলাম না। শেষ ৫ বছরে আমি একবার সুযোগ পেয়েছি। দেশ ও বিদেশে সমান তিনটি করে ওয়ানডে খেলেছি। এই কিন্তু আমার সুযোগ। তারপর না টি-টোয়েন্টি দলে ডাক পেয়েছি, না টেস্টে সুযোগ পেয়েছি।”

বিজয় আরও বলেন, “টেস্টে এখন ফার্স্ট ক্লাসে আমার ২২টা সেঞ্চুরি। অলমোস্ট ১০০’র কাছাকাছি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলে ফেলেছি। আমি নিজেকে এখন যথেষ্ঠ অভিজ্ঞ পারফরমার বলেই মনে করি। টেস্ট ক্রিকেটের জন্য আমি দুই চার বছর ধরেই তৈরি; কিন্তু আমি কোন সুযোগ পাইনি। টি-টোয়েন্টি’তেও আমার শেষ ম্যাচে আমি ৪৯ রান করেছিলাম; কিন্তু তারপর আর সুযোগ পাইনি। জানি না আমি একাই দায়ী কি না? আমার এ অবস্থার দায় আর কেউ নেবেন কিনা? তাও জানা নেই।

মানছি ফিরে এসে আমি ছয় থেকে সাতটা ম্যাচ টানা খেলেছিলাম। মানছি ভাল করতে পারিনি; কিন্তু তারপর থেকে ম্যাচ খেলার সুযোগ পাওয়া বহুদুরে, আমি দলেই নেই। মানুষ যখন আমাকে প্রশ্ন করে, আপনি আসছেন, যাচ্ছেন- ব্যাপারটা কী? তাদের উত্তর দেই, আমি আসছি-যাচ্ছি না। একবারই এসেছিলাম। তারপর আর সেভাবে আসিনি। সুযোগও মেলেনি। আমিও একটি প্রশ্ন রাখতে চাই, আচ্ছা আমাকে কি পর্যাপ্ত সুযোগ দেয়া হয়েছে?”

বিজয়ের মতো অনেকেই জাতীয় দলের বাইরে গিয়ে প্রতিনিয়ত আক্ষেপে পুড়ে মরেন। আব্দুর রাজ্জাক, শাহরিয়ার নাফিস, নাইম ইসলাম, নাজমুল হোসেন, জহিরুল ইসলাম, তুষার ইমরানরা ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো করলেও দল থেকে বাদ পড়ায় ডাক পাননি জাতীয় দলে। এদের মধ্যে কেউ কেউ আক্ষেপ নিয়েই অবসরে চলে গেছেন৷ বিজয়ের মতো ক্রিকেটাররা যদি হারিয়ে যায় সেই দায় শুধুই কি তাদের? দিনশেষে ক্ষতি হচ্ছে ক্রিকেটারদের পাশাপাশি দেশের ক্রিকেটও।

তানবীর রহমান
আসসালামু আলাইকুম, আমি তানবীর রহমান। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যায়নরত একজন শিক্ষার্থী। পাশাপাশি ক্রিকেটসহ ক্রীড়া জগত এবং বিভিন্ন বিষয়ে লেখালেখি করি৷

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles