এবার হচ্ছে ভারত-পাকিস্তান সিরিজ?

ভারত পাকিস্তান সিরিজ ছিল এক সময় ক্রিকেট দুনিয়ায় সবচেয়ে জমজমাট লড়াইয়ের একটি। বিভিন্ন দেশের ক্রিকেট ভক্তরাও দুদলের সমর্থনে ভাগ হয়ে যেত। এমনকি বাংলাদেশেও ছিল এক সময় ভারত- পাকিস্তান সিরিজ নিয়ে উম্মাদনা। ২০১২-১৩ সালে সর্বশেষ দ্বিপাক্ষিক সিরিজে দুই দল ভারত-পাকিস্তান মুখোমুখি হয়েছিল। দুই দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে আইসিসির বৈশ্বিক টুর্নামেন্ট ছাড়া এরপর মুখোমুখি হয়নি তারা।

তবে ক্রিকেট ভক্তদের অপেক্ষা ফুরাতেও পারে এই দুদলের লড়াই দেখার। পাকিস্তানের একটি দৈনিক জাং এমনই জানিয়েছে। পত্রিকার বরাত দিয়ে আরো জানা যায়, এবছরের কোনো এক সময় ৬ দিনের একটি উইন্ডোতে ৩ ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ খেলতে পারে দুই দল। তবে এখনো ভেন্যু নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয় নি। এ বছর আইসিসির ভবিষ্যত সফর সূচিতে কোনো সময় খালি না থাকলেও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডকে (পিসিবি) এই সিরিজের জন্য প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে।

পিসিবির এক সূত্র জানিয়েছে, এই মুহূর্তে বিসিসিআই এবং পিসিবির মধ্যে টি-টোয়েন্টি সিরিজ নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি।

এদিকে কয়েকদিন আগে দুই দেশের খারাপ সম্পর্কের জন্য সরাসরি ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে দায়ী করেছিলেন পিসিবির সাবেক প্রেসিডেন্ট জাকা আশরাফ। তিনি বলেছিলেন, ‘এখনও সময় আছে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার জিন্নাহ-গান্ধী ট্রফি খেলানোর। কিন্তু মোদির মতো উগ্রপন্থী থাকায় এটি সম্ভব হচ্ছে না।’

ক্রিকেট পাকিস্তান ডটকমকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি আরো বলেছেন, ‘আমি যখন পিসিবির দায়িত্বে ছিলাম, তখন বিসিসিআইকে (ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড) প্রস্তাব দিয়েছিলাম, দুই দেশের দুই মহান নেতার নামে জিন্নাহ-গান্ধী সিরিজ আয়োজন করা হোক। কিন্তু তারা নরেন্দ্র মোদির মতো উগ্রপন্থীদের কারণে এ প্রস্তাব নিয়ে এগোতে দ্বিধান্বিত ছিল।’

জাকা আশরাফ জানান, ‘ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে নিয়মিত ভিত্তিতে কোনো সিরিজ আয়োজন করা হলে, সেটি ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশেজ সিরিজের মতোই জমজমাট ও উত্তেজনাপূর্ন হবে।’

জাকা আশরাফ বলেছেন, ‘ভারত-পাকিস্তানের মধ্যকার এ সিরিজটি ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার অ্যাশেজের মতোই হতে পারতো। যা কি না দুই দেশের ক্রিকেটীয় সম্পর্কের উন্নতি ঘটাতো এবং দুই দেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা উত্তেজনাপূর্ণ খেলা উপভোগ করতে পারত।’

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

Latest Articles